আমি তাঁর প্রতি অনেক কৃতজ্ঞ, যে তিনি এতটা ধৈর্য নিয়ে আমাকে এগুলো শিখিয়েছেন। আমরা আমাদের সবচেয়ে প্রিয় কাপড়গুলো যতটা নিখুঁত ভাবে বুনি, আমার আর আরজিনা খালার সম্পর্ক ততটাই বিজড়িত।

31252973_2054372724844061_3735212991520440320_n

[Part 2/2]
 
“যখন ছোট ছিলাম তখন আমি আরজিনা খালার সাথে অনেক সময় কাটাতাম। যেহেতু আমার বাবা-মা বেশিরভাগ সময় কর্মক্ষেত্রে থাকতেন, তাই আমার যত্ন ও দেখাশোনা তিনিই করতেন। যখন আমি তার কোলে বসে একটির পর একটি খেলনা দিয়ে বাড়ি বানাতাম, তিনি তখন কাপড় সেলাই করতেন। তিনি পুতুল, কাঁথা এবং অন্যান্য অনেক কিছু সেলাই করতে জানতেন। ধীরে ধীরে, আমিও তার দক্ষতাগুলো আয়ত্তে এনে ফেলি। আজকে আমি সেলাইয়ের ৯৫টি ভিন্ন উপায় জানি! আমি তাঁর প্রতি অনেক কৃতজ্ঞ, যে তিনি এতটা ধৈর্য নিয়ে আমাকে এগুলো শিখিয়েছেন।
 
আমরা আমাদের সবচেয়ে প্রিয় কাপড়গুলো যতটা নিখুঁত ভাবে বুনি, আমার আর আরজিনা খালার সম্পর্ক ততটাই বিজড়িত। যেদিন আমি এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছি, আমি নিজের জন্য কাজ খোঁজা শুরু করলাম। আমি স্বাধীন এবং স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে চেয়েছিলাম। অনেকের মতো আমিও টিউশনি শুরু করলাম। আমি মানি যে, টিউশনি টাকা উপার্জনের একটি ভাল উপায়।
 
খুব অল্প সময়ের মধ্যে আমি ভাল ইনকাম করা শুরু করে ফেলি। ততো দিনে আরজিনা খালা বিয়ে করে একটি অন্যরকম জীবন শুরু করলেন। তার স্বামী তার বিভিন্ন বাসায় কাজ করাতে রাজি ছিল না। তিনি আমার সাথে সাহায্যের জন্য যোগাযোগ করতেন। তখন তিনি কিছু কাজ খুঁজছেন, যা তিনি বাসা থেকেই করতে পারবেন আর তার স্বামীকেও বিব্রত করবে না। আমি দেরি না করে তাকে সাহায্য করার সিদ্ধান্ত নিলাম। আমি তার দক্ষতাকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে বললাম। আমার ডিজাইন করা কাপড় ও জুয়েলারি তৈরির জন্য আমি তার সাথে আরও ৩ জনকে নিয়োগ করেছিলাম। শীঘ্রই, একটি পূর্ণাঙ্গ ব্যবসার প্রসার ঘটলো। একটি সময়, আমাদের ১০ – ১২ জন লোকের একটি দল গড়ে উঠলো। আরজিনা খালাকে সাহায্য করার পাশাপাশি অন্যদের জীবিকার সুযোগ তৈরি করে দেয়াতে আমি অবিশ্বাস্যভাবে পরিপূর্ণতা পেয়েছি।”
– একজন বাংলাদেশী ডিজাইনার
 

 
“As a child, I spent most of my time with Arjina Khala. Since my parents were mostly away for work, she is the one who took care of me. While I went on building houses with my toys, one after another, sitting on her lap, she would go on stitching. She stitched clothes, she knew how to stitch dolls, blankets and many other things. Slowly, I picked up on her skills over the years. Today, I know 95 different ways to stitch! I have to thank her for this life skill she has taught me so patiently.
 
My story with Arjina Khala is weaved as intricately as the stitches that form our most loved pieces of fabrics. The day I completed my HSC examination, I started looking for work to support my own livelihood. I wanted to be independent and self-sufficient. Like most of us, I began with teaching students. Teaching is a good source of earning money, I have to admit.
 
In a very short span of time, I was able to pay my own bills. By then, Arjina Khala was married and living a very different life. Her husband did not approve of her former line of job, working at various households. That’s when she got in touch with me for help. She reached out to me looking for some work; something she would be able to do from home and will not involve upsetting her husband. I immediately decided to step in. I asked Arjina Khala to put her skills to use. I assigned 3 more people to her and instructed them to make clothes & jewelry I was designing. Soon, we had a full-fledged business model rolling. At one point, we had a team of 10-12 people working together. It was incredibly fulfilling to be able to help Arjina Khala, along with others make a sustainable livelihood.”
– A Bangladeshi designer working at a retail clothing store

This story is featured in Made In Equality, an initiative supported by C&A Foundation.